কম ঘুমে সর্বনাশ

ঘুম হল একটি স্বাভাবিক শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়া। এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই শরীর নিজেকে আগামীর যুদ্ধের জন্য শারীরিক ও মানসিকভাবে তৈরি করে রাখে। তাই প্রতিদিন পর্যাপ্ত সময় ঘুম প্রয়োজন।
একজন মানুষের সুস্থ থাকার জন্য প্রতিদিন অন্ততপক্ষে ৭ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। না হলে শারীরিক ও মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। এমনকি পিছু নিতে পারে ডায়াবেটিস ও হাই প্রেশারের মতো অসুখ।
প্রতিদিন সাত ঘণ্টা ঘুম না হলে কি কি সমস্যা হতে পারে তা এখানে দেয়া হল,

১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়
আমাদের শরীরের নিজস্ব রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা রয়েছে। এই অস্ত্রের সাহায্যেই আমরা একাধিক ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার নিরন্তর আক্রমণ সামলে সুস্থ-সবল জীবনযাপন করি। তবে দিনে ৭ ঘণ্টার কম সময় ঘুমালে অচিরেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে পড়বে। ফলে অল্পতেই জ্বর, সর্দি, কাশির মতো অসুখের ফাঁদে পড়তে হবে।

২. পেটের সমস্যা
রাতের বেলায় ৭ ঘণ্টা ঘুম না হলে গ্যাস, অ্যাসিডিটির মতো সমস্যার প্রকোপ বাড়তে পারে। এমনকি এই কারণে ভাত, ডালের মতো খাবার খেয়েও পিছু নিতে পারে বদহজম। বিশেষত, যাঁরা ইতিমধ্যেই আইবিএস বা আইবিডি-এর মতো জটিল অসুখের ফাঁদে পড়ে কষ্ট পাচ্ছেন, তাঁদের কষ্ট আরও বাড়তে পারে। তাই অন্ত্র ও পাকস্থলীর স্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে অন্তত ৭ ঘণ্টার বেশি সময় ঘুমাতেই হবে।

৩. হাই ব্লাড প্রেশার
পর্যাপ্ত সময় ঘুমালে আপনার দেহের সকল রক্তনালী থাকবে সুস্থ-সবল। অপরদিকে ৭ ঘণ্টারও কম সময় ঘুমালে ব্লাড প্রেশার ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার আশঙ্কা বাড়ে। এমনকি এই কারণে দেহে ইনফ্লামেশন বা প্রদাহের প্রকোপও বাড়তে পারে।

৪. ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা
ডায়াবেটিস একটি ঘাতক অসুখ। এই রোগ বেড়ে গেলে হার্ট, কিডনিসহ একাধিক অঙ্গের সমস্যা দেখা দেয়। তবে প্রতিদিন ৭ ঘণ্টার কম সময় ঘুমালে কিন্তু দেহের এন্ডোক্রাইন সিস্টেমের কার্যপদ্ধতি বিগড়ে যেতে পারে। আর সেই সুবাদেই ডায়াবেটিসের মতো জটিল অসুখের আশঙ্কাও বাড়ে।

৫. মনের উপর চাপ বাড়ে
​রোজ পর্যাপ্ত সময় ঘুম না হলে উৎকণ্ঠা, অবসাদ, ভয়ের মতো মানসিক সমস্যা গ্রাস করতে পারে। এমনকি পিছু নিতে পারে আত্মহত্যার ভাবনাও। আর এই সমস্যা বাড়াবাড়ি পর্যায়ে পৌঁছে গেলে বাই পোলার ডিজঅর্ডারের আশঙ্কা থাকে। তাই হেসে-খেলে জীবন কাটাতে চাইলে প্রতিদিন অন্তত ৭ ঘণ্টা ঘুম চাই-ই চাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here