থমকে গেল ট্রাম্পের আদেশ

0
248

যুক্তরাষ্ট্রে সাময়িকভাবে প্রবেশাধিকার হারানো ও দেশটির বিমানবন্দরে আটকা পড়া শরণার্থীদের পক্ষে রুল জারি করেছে একটি মার্কিন ফেডারেল আদালত। শনিবার ব্রুকলিনের ফেডারেল আদালতের রুলে বলা হয়, ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছেন,অথবা ভ্রমণরত অবস্থায় আছেন এমন নাগরিকদের বেলায় ট্রাম্পের নতুন অভিবাসন নীতি প্রয়োজ্য হবে না।  বৈধ কাগজপত্রের অধিকারী যারা,তাদের ক্ষেত্রেও ট্রাম্পের নীতি বাস্তবায়িত হবে না বলে জানিয়েছে আদালত। রবিবার (২৯ জানুয়ারি) এ খবরটিকে প্রধান শিরোনাম করেছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম নিউ ইয়র্ক টাইমস।
শুক্রবার এক নির্বাহী আদেশে তিন মাসের জন্য ৭ মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে স্থগিতাদেশ দেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পাশাপাশি শরণার্থী কর্মসূচি চার মাসের জন্য স্থগিত করেন তিনি। তবে সব শরণার্থীর বেলায়, কর্মসূচি স্থগিতের মেয়াদ নির্দিষ্ট ৪ মাস হলেও সিরিয়ার ক্ষেত্রে এই মেয়াদ অনির্দিষ্টকালের। প্রশাসনের শরণার্থী সীমিতকরণ কর্মসূচির অংশ হিসেবে ওই নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন নবনির্বাচিত এই রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট। নিষেধাজ্ঞার পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরে এবং বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে শুরু হয় তা বাস্তবায়নের ‘অ্যাকশন’। নির্বাহী আদেশের প্রথম দিনেই বিমানবন্দরে হয়রানির শিকার হতে শুরু করেন মুসলমানরা। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিমানবন্দরে আটকে দেওয়া হয় মুসলিম যাত্রীদের। ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ শুরু হয়।
এই অবস্থায়,শনিবার রাতে মার্কিন ফেডারেল আদালত এক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এদিন ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞায় আংশিক স্থগিতাদেশ জারি করেন ফেডারেল বিচারপতি। ফেডারেল আদালতের সিদ্ধান্তে বলা হয়,যারা ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছেছেন,অথবা যারা এই মুহূর্তে ভ্রমণপথে রয়েছেন,তাদের ক্ষেত্রে ট্রাম্পের অভিবাসন নীতি প্রযোজ্য হবে না। ফেডারেল আদালতের সিদ্ধান্তে আরও বলা হয়েছে, যারা বৈধ ভিসার অধিকারী,তাদেরকে অবশ্যই প্রবেশাধিকার দিতে হবে।

বাংলা ট্রিবিউন…

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY