ভোট স্থগিত যেসব কেন্দ্রে

0
177

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক: আজ বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) ৫৯টি জেলায় শুরু হয়েছে জেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। সকাল ৯টায় শুরু হওয়া এ ভোট চলবে দুপুর ২টা পর্যন্ত। তবে ভোট শুরুর আগের রাতে উচ্চ আদালতের নির্দেশে বিভিন্ন জেলার বেশ কিছু ওয়ার্ডে ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

নোয়াখালী প্রতিনিধি জানান, জেলার একটি ওয়ার্ডে সবকটি পদে এবং তিনটি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো. মনির হোসেন  বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশে নোয়াখালীর ৪ নং ওয়ার্ডে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ভোট স্থগিত করা হয়েছে। এদিকে, আদালতের নির্দেশে ২, ৬ ও ৯ নং ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি জানান, আদালতের নির্দেশে জেলার ৬ নং ওয়ার্ডের (ফুলবাড়ী উপজেলা) একটি কেন্দ্রে সব পদে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছেন জেলা রিটার্নিং অফিসার।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার দেলোয়ার হোসেন জানান, বিলুপ্ত ছিটমহল লাগোয়া এই উপজেলায় সদ্য নির্বাচিত প্রতিনিধিরা ভোটার হতে না পারায় উচ্চ আদালতে রিট করেন। এর ফলে নির্বাচন কমিশন ৬ নং ওয়ার্ডভুক্ত এই উপজেলার একটি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে। এই কেন্দ্রে মোট ৬৮ জন ভোটার রয়েছেন। আগামী ৫ জানুয়ারি রিটের শুনানি হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, জেলার ১৫টি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটি কেন্দ্রে সব পদে উচ্চ আদালতের নির্দেশে ভোটগ্রহণ স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

রিটার্নিং অফিসার ও সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। স্থগিত হওয়া কেন্দ্রগুলো হচ্ছে,  ৯নং ওয়ার্ডের শ্যামনগর উপজেলা পরিষদ হলরুম, ৬নং ওয়ার্ডের দেবহাটা উপজেলার সখিপুর খান বাহাদুর আহসানউল্লাহ কলেজ কেন্দ্র ও ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা হারুনার রশীদ কলেজ কেন্দ্র।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশে সরাইল উপজেলায় সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচন  স্থগিত করেছে জেলা নির্বাচন কমিশন।
নির্বাচন কমিশনের উপসচিব ফরহাদ আহমেদ খান স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি আদেশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নির্বাচন কমিশনে পাঠানো হয়। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আলাউদ্দিন আল মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, সাধারণ সদস্য পদে প্রার্থিতা বাতিল হওয়া তিন নম্বর ওয়ার্ডের মো. আব্দুল্লাহ ভূঁইয়ার রিট পিটিশনের পরিপ্রেক্ষিতে সাধারণ সদস্য পদে নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ দেন উচ্চ আদালত। আপিল বিভাগ আগামী ৫ জানুয়ারি পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, মামলা সংক্রান্ত জটিলতার কারণে আদালতের নির্দেশে একটি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

জেলা নির্বাচন অফিসার বেলায়েত হোসেন জানান, মামলা সংক্রান্ত জটিলতায় ১২নং ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়। তবে সংরক্ষিত আসনে ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

কক্সবাজার প্রতিনিধি জানান, উচ্চ আদালতের নির্দেশে দুটি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ভোট স্থগিত করা হয়েছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন জানান,  ৩ নম্বর ওর্য়াড মহেশখালী উপজেলার বার্মিজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ৪ নম্বর ওয়ার্ড পেকুয়া উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষ কেন্দ্রের সাধারণ সদস্য পদের ভোটগ্রহণ বন্ধ রয়েছে। তবে ওই দুইটি কেন্দ্রে নারী সদস্য ও চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহণ চলছে।

গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, জেলা পরিষদ নির্বাচনে ৮ ও ১০ নং ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য (পুরুষ) পদে দুই প্রার্থীর বৈধ্তা নিয়ে সন্দেহ থাকায় ভোট গ্রহণ স্থগিত রয়েছে।  তবে সেখানে চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ভোটগ্রহণ চলছে।

জেলা নির্বাচন অফিসার মো. শাহিনুর রহমান প্রমাণিক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, স্থগিত হওয়া কেন্দ্র দুটি হলো সাদুল্যাপুর উপজেলার কান্তনগর বিণয় ভূষন উচ্চ বিদ্যালয় এবং গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাপমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র।

তিনি আরও জানান, দুই প্রার্থীর বৈধ্তার বিষয়টি সন্দেহ হওয়ায় উচ্চ আদালতে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে আপিল করা হয়। আপিলের পরিপ্রেক্ষিতে উচ্চ আদালত আগামী ৫ জানুয়ারি শুনানির দিন ধার্য করেন।

সূত্র: বাংলাট্রিবিউন

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY