পবা সেফহোমে খাদ্যে বিষক্রিয়ায় ২৬ জন অসুস্থ একজনের মৃত্যু

0
251

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক: রাজশাহীর পবা সেফহোমে খাদ্যে বিষক্রিয়ায় তিন দিনে ২৬ জন অসুস্থ হয়ে পরেছেন। এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার এক প্রতিবন্ধির মৃত্যু হয়েছে। তাদের উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে গতকাল শুক্রবারের সাতজন ও আজ শনিবার আরো সাত জন ভর্তি হয়েছেন। তবে সেফহোম কর্তৃপক্ষ খাদ্যে বিষক্রিয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন, ওজিফ (১৮), পারভিন (১৫), আমবিয়া (১৪), তানিয়া (৩৬), প্রমি খাতুন,  তারা বেগম (৩৩), আঞ্জু,  পপি খাতুন (১৭), জান্নাতুন খাতুন (১৭), তারা বেগম (৩০), অজুফা বেগম (৫০), রহিমা বেগম (২৫), রাশিদা (৩৫), কুলসুম (৭),

জানা গেছে, গত বুধবার দিবাগত রাতের খাবার খেয়ে বায়া সেফহোমে আশ্রয় নেওয়া মানসিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী সাতজন শিশুসহ আরো কয়েকজন কিশোরী ও বৃদ্ধ খাদ্যে বিষক্রিয়ায় আন্ত্রান্ত হয়। তাদের সেই রাতে সাতজন ও সকালে ১৩জনকে রামেকে ভর্তি করা হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওইদিন রাতেই মিনতী রাণী (৩৫) নামের একজন প্রতিবন্ধি মারা যান। তবে বিষয়টি গোপন রাখে সেফহোম কর্তৃপক্ষ। তবে বিষয়টি শুক্রবার দিবাগত রাত ১০টার পরে জানাজানি হয়।
অভিযোগ রয়েছে, সেফহোমের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দীর্ঘদিন ধরে হেফাজতিদের খাবার সরবরাহ, চিকিৎসা প্রদান ও পথ্য সরবরাহে নানা অনিয়ম করছেন। এছাড়া তারা এসব হেফাজতিদের বিভিন্নভাবে নির্যাতন করেও থাকেন।

এদিকে খাদ্যে বিষক্রিয়া এবং একজনের মৃত্যু বিষয়ে তত্ববধায়ক আবু তাহের বলেন, হঠাৎ করেই সাতজন হেফাজতি অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। সাথে সাথেই তাদেরকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে মানসিক প্রতিবন্ধী মিনতী রানী মারা যান। তবে খাদ্যে বিষক্রিয়া নয় ডায়রিয়ায তারা আক্রান্ত হয়ে ওই প্রতিবন্ধি মারা গেছেন-যোগ করেন ওই কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিনের ঘটনা পরে আজ আরো ৬জন ভর্তি হয়েছেন বিভিন্ন ওয়ার্ডে। তাদের মধ্যে একজন মারা গেছেন একদিন আগে। পবার এই সেভহোমে বর্তমানে ৭৪ জন হেফাজতি রয়েছে। অথচ একটি সেডের ধারণক্ষমতা ৫০ জনের। আশ্রয় নেওয়া ৫৪ জনই হলো প্রতিবন্ধী।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY