ঝালকাঠিতে দুই বিচারক হত্যা: আরিফের ফাঁসি

0
211

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক: ঝালকাঠিতে দুই বিচারক হত্যা মামলায় জেএমবি নেতা আসাদুল ইসলাম ওরফে আরিফের ফাঁসি আজ রবিবার (১৬ অক্টোবর) রাতে কার্যকর হবে। এ খবরে দুই বিচারকের পরিবার, আত্মীয়-স্বজনসহ ঝালকাঠিবাসী স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে। রবিবার রাত সাড়ে ১০টায় খুলনা জেলা কারাগারে তার ফাঁসি কার্যকর করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন খুলনার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট নূর-ই-আলম।

২০০৫ সালের ১৪ নভেম্বর বাসা থেকে অফিসে যাওয়ার পথে গাড়িতে বোমা হামলা চালিয়ে ঝালকাঠির সিনিয়র সহকারী জজ জগন্নাথ পাড়ে ও সোহেল আহম্মেদকে হত্যা করে জেএমবির জঙ্গিরা। ২০০৬ সালের ২৯ মে এ হত্যা মামলায় সাত জনের ফাঁসির আদেশ দেওয়া হয়। আসাদুল পলাতক থাকায় ছয় জনের ফাঁসি ইতোমধ্যে কার্যকর হয়েছে। পরবর্তীতে এ মামলা পরিচালনাকারী তৎকালীণ সরকারি পাবলিক প্রসিকিউটর হায়দার হোসেনকেও জঙ্গিরা গুলি করে হত্যা করে। পিপি হায়দার হত্যা মামলায় গত ২৫ আগস্ট পাঁচজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।

এ মামলার রায়ে মৃত্যু দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত আরেক জেএমবি নেতা আসাদুল ইসলাম ওরফে আরিফ ২০০৭ সালের ১০ জুলাই ময়মনসিংহ থেকে গ্রেফতার হয়। ২০০৮ সাল থেকে সে খুলনা জেলা কারাগারে রয়েছে।

জেএমবি নেতা আরিফের ফাঁসি কার্যকরের সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে খুলনা জেলা কারাগারের নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ঝালকাঠি পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আ. মান্নান জানান, ঝালকাঠিতে দুই বিচারক হত্যা মামলায় ২০০৬ সালের ২৯ মে সাত জনের ফাঁসির আদেশ হয়। এর মধ্যে জেএমবি প্রধান শায়খ আব্দুর রমান ও সেকেন্ড ইন কমান্ড সিদ্দিকুর রহমান ওরফে বাংলা ভাইসহ ৬ জনের ফাঁসি কার্যকর হয়। কিন্তু জেএমবির অপর শীর্ষ নেতা আরিফ দীর্ঘদিন পলাতক ছিল।

আরিফের ফাঁসি কার্যকর হতে যাচ্ছে এ খবরে দুই বিচারকের পরিবার ও ঝালকাঠিবাসী স্বস্তিতে। তাদের মতে, এর মাধ্যমে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY