১২টা চামড়ায় ১২’শ টাকা ধরা

0
263

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক: ‘আমার পাটি ৩’শ গরু আর ছাগলের চামড়া কিনেছে। তার প্রায় সাড়ে ৭ হাজার টাকার মত লোকসানে। আমি এবার নতুন,ছাগল আর গরুর ১২টা চামড়া কিনে ১২শ টাকা লোকসান হয়েছে। এবার চামড়ার দাম নির্ধারণ করা হলেও অনেকেই লাভের আশায় বেশি দামে কিনেছে চামড়া। তা আমরাও বেশি দামে কিনেছে চামড়া।’

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে রাজশাহী মহানগরীর তালাইমারি এলাকায় অটোর ওপরে এমনটি বলছিলেন, মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ী আবদুস সালাম।

তিনি বলেন, ‘আমি রাজশাহী মহানগরীসহ দারুশা এলাকা থেকে কিনেছিলাম চামড়াগুলো। গত বছর বেশি লাভ না হলেও তেমন লোকসান হয় নি। এবার লোকসান হলো। বড় ব্যবসায়ীরা আমাদের থেকে চামড়া কেনে কম দামে। আর বেশি দামে বিক্রি করার জন্য লবন দিয়ে রেখে দেয়া। আমাদের তো আর রাখার জায়গা নাই, এই সুযোগটাই কাজে লাগাই বড় ব্যবসায়ীরা। তারা যে দাম বেধে দেয় আমাদেরকে সেই দামে বিক্রি করতে হয়।’

মৌসমি ব্যবসায়ী আসলাম আলী বলেন, ‘দামটা আগেই নির্ধারণ করা হলেও বেশি দামে চামড়ার কিনেছে অনেকেই। তাই লোকসানের পাল্লা বেশি ভাড়ি।’

এদিকে, ব্যবসায়ীরা এ লোকসান থেকে কিছুটা রক্ষা পেলেও করুণ অবস্থা মৌসুমি ব্যবসায়ীদের। বেশি দামে চামড়া কিনে আর বিক্রি করতে হিমসিম খেতে হচ্ছে তাদের। মৌসুমি ব্যবসায়ীদের দাপটে চামড়ার কাছে ভিড়তে পাড়ে নি অনেক ব্যবসায়ী। তার পরেও মৌসমি ব্যবসায়ীদের লোকসানে পড়তে হচ্ছে। নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশি টাকায় চামড়া কেনায় তাদের লোকসানের মূল কারণ।

এ বিষয়ে নাটোর চামড়া ব্যাবসায়ী গ্রুপের সহসভাপতি লুৎফর রহমান লাল্টু বলেন,  নাটোর থেকে প্রতি বছর প্রায় ৯ কোটি টাকার চামড়া ঢাকায় পাঠানো হয়। তবে ব্যবসায়ীদের এবার লোকসান হতে পরে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY