রাজশাহীতে ৫২ নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার

0
210

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক: রাজশাহী জেলার মহানগর ও নয়টি থানায় আগস্ট মাসে মোট ৫২টি নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে  ২৫টি ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ২৭টি। বেসরকারি মানবাধিকার সংস্থা এসিডি’র  জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে।
এসিডি‘র তথ্যানুযায়ী, রাজশাহী জেলায় আগস্ট মাসে নারী নির্যাতনের বেশ কিছু আলোচিত ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে গত ৪ আগস্ট চারঘাট উপজেলার থানা পাড়া এলাকায় মিনহাজুল ইসলাম নামের এক পুলিশ কনস্টেবল যৌতুকের জন্য নিজ স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা শারমিনকে নির্যাতনের পর শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে একে আত্মহত্যা বলে প্রচার করে। অভিযুক্ত চারঘাট পুলিশ একাডেমীতে কর্মরত এবং তানোর উপজেলার মথুরাপুর গ্রামের মেছের আলীর পুত্র। নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায় বিয়ের পর থেকেই অভিযুক্ত যৌতুকের জন্য ভিকটিমের উপর অত্যাচার ও নির্যাতন করত। ঘটনার দিন একই কারণে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মারপিটের পর সন্তানের সামনেই অভিযুক্ত শারমিনকে হত্যা করে। পরে থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা নিতে গড়িমসি করে।
এছাড়া গত ২৩ আগস্ট পুঠিয়া উপজেলার ধোপাপাড়া গ্রামের রমজানের ছেলে পলাশ নিজ স্ত্রী ঝিলিককে (১৭) কৌশলে বাড়ি থেকে রাজশাহী  শহরে নিয়ে এসে পাচারকারীর হাতে তুলে দেয়ার চেষ্টা করে। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় পুলিশ ভিকটিমকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করে। ভিকটিম জানায় স্বামী ও তার বন্ধুদের দেয়া কুপ্রস্তাব ফিরিয়ে দিলে তাকে হুমকী-ধামকী প্রদান করে ইনজেকশন পুশ করে এবং লাল পানীয় খাইয়ে অচেতন করে পাচারকারীর হাতে তুলে দেয়ার চেষ্টা করে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।
এসিডি সূত্র জানায়, জেলায় এই মাসে ২৫টি নারী নির্যাতনের খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে মহানগরীর চারটি থানায় সংগঠিত হয়েছে ১০টি। মহানগরীর বাইরের ৯টি থানায় সংঘটিত হয়েছে ১৫টি নির্যাতনের ঘটনা। এর মধ্যে বাঘমারা, মোহনপুর ও গোদাগাড়ীতে ৩টি করে মোট ৯টি, বাঘা ও চারঘাটে ২টি করে মোট ৪টি এবং দূর্গাপুর ও তানোরে ১টি করে মোট ২টি নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে হত্যা ১টি, রহস্যজনক মৃত্যু ২টি, ধর্ষণ ১টি, ধর্ষণের চেষ্টা ১টি, আত্মহত্যা ৪টি, আত্মহত্যার চেষ্টা ২টি, যৌন হয়রানী ১টি এবং অন্যান্য ১৩টি ঘটনা ঘটেছে ।
জেলায় গত মাসে শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ২৭টি। এর মধ্যে মহানগরীতে সংগঠিত হয়েছে ৭টি এবং মহানগরীর বাইরের নয়টি থানায় সংঘটিত হয়েছে ২০টি। এর মধ্যে গোদাগাড়ীতে ১২টি, বাগমারায় ৪টি, মোহনপুরে ২টি এবং বাঘা ও তানোরে ১টি করে মোট ২টি শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে হত্যা ১টি, হত্যার চেষ্টা ১২টি, রহস্যজনক মৃত্যু ১টি,  ধর্ষণ ২টি, পাচার ১টি, অপহরণ ২টি, আত্মহত্যা ৩টি, অন্যান্য ৫টি ঘটনা ঘটেছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY