পাশবিক সেই নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন সালমা

0
316

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক: রাজশাহীতে স্বামী ও তার পরিবারের হাতে নির্যাতনের শিকার  রিফাহ তাসফিয়া সালমা (২১) আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। আজ রোববার দুপুর একটায় রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ এর বিচারক মোকসেদা আজগর ২২ ধারায় এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন।
আদালত সূত্র জানায়, নির্যাতিত সালমাকে আজ দুপুর ১২টার দিকে আদালতে নিয়ে আসা হয়। এরপর ১টার দিকে আদালত তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন।
জবানবন্দিতে সালমা তার পর করা পাশবিক নির্যাতনের বর্ণনা দিয়েছেন। কীভাবে তাকে নির্যাতন করেছে, কারা কারা নির্যাতন করেছেন, কারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন সেই বর্ণনা দিয়েছেন ভুক্তভোগী সামলা। বাদি পক্ষের আইনজীবী জ্যাতিউল ইসলাম সাফি জানায়, ২২ ধারায় সালমার জবানবন্দি গ্রহণ করেছেন আদালত। জবানবন্দিতে সালমা তার ওপর পাশবিক নির্যাতনের বর্ণনা দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, এই ধরনের মারধরের ঘটনা এরআগে আমি দেখিনি। নির্যাতনে সালামার দুই হাত, পা ভেঙে গেছে। বুকের দুইটি হার ভেঙে গেছে। বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ঘটনায় ৫জনকে আসামী করে একটি মামলা করা হয়েছে। আজ আদালতে জবানবন্দী দিতে সামলাকে নিয়ে আসা হয়।  গ্রহণ করেনে। পুরে দুপুর দুইটার দিকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, গত ১১ জুলাই নগরীর ডিঙ্গাডোবা এলাকায় স্বামী সামিউল হক সোহাগের বাসায় নির্যাতনের শিকার হয় সালাম। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ রামেক হাসপাতালের এক নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে সেইদিনই বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রামেকের ওসিসিতে রেফার্ড করা হয়।

এই ঘটনার পরের দিন আহত সালমার মা হোসনে আরা পারভীন বাদি হয়ে নগরীর রাজপাড়া থানায় ৫জনকে আসামিকে একটি মামলা করেন। এই মামলায় মেয়ের স্বামীসহ দুই ভাই ও শ্বশুর-শ্বাশুরীকে আসামি করা হয়।

মামলা সূত্র জানায়, এরআগে সোহাগকে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। তার পরেও সে আবার টাকা চায়। ১১ জুলাই সামলাকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে (জিআই পাইপ) দিয়ে হাত-পা ভেঁঙে দেয় আর মাথায় আঘাত করে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY