মোটরসাইকেলে এসে হোটেলে ককটেল হামলা

0
199

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক: ঢাকার আশুলিয়ার পল্লীবিদ্যুৎ এলাকায় নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কে একটি হোটেলে ককটেল হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। আজ সোমবার সকাল ৬টার দিকে হঠাৎ একটি মোটরসাইকেলে করে এসে ওই হামলা চালানো হয়। এ ঘটনায় হোটেলের চার কিশোর কর্মচারী আহত হয়েছে।

আহত কিশোররা হলো ছমির (১৫), বিল্লাল (১৬) ও সৈকত (১৪)। আরেকজনের নাম জানা যায়নি।

এর দেড় ঘণ্টা পর সকাল সাড়ে ৭টার দিকে সাভারের হেমায়েতপুরের হরিণধরা এলাকায় ককটেল বিস্ফোরণে মোস্তাফিজার রহমান মাহিম (১৪) নামের এক স্কুলছাত্র আহত হয়।

হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত সুমাইয়া হোটেলের মালিক ইব্রাহিম বলেন, ‘আজ সকালে আশুলিয়ার পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় আমার সুমাইয়া হোটেলে রুটি বানাচ্ছিল হোটেল কর্মচারী ছমির, বিল্লাল, সৈকতসহ চারজন। এ সময় মোটরসাইকেলে করে আসা কয়েকজন দুর্বৃত্ত হোটেলে একটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় ককটেলের আঘাতে ওই চার কিশোর গুরুতর আহত হয়।’

আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহসিনুল কাদির জানান, স্থানীয় ব্যক্তিরা আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ সকালে সাভারের হেমায়েতপুরের হরিণধরা এলাকায় স্থানীয় ৮ নম্বর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নবনির্বাচিত সদস্য ফিরোজ কাজলের বিজয় মিছিল বের হয়। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে হঠাৎ একটি ককটেলের বিস্ফোরণে স্কুলছাত্র মোস্তাফিজার রহমান মাহিম গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সাভার মডেল থানার ওসি এস এম কামরুজ্জামান বলেন, ‘ককটেলের আঘাতে এক কিশোরের আহত হওয়ার খবর শুনেছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে, কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’

সূত্র: এনটিভি

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY