রাজশাহীর আইনশৃংঙ্খলা অবনতি হয়েছে : সাংসদ বাদশা

0
187

মিরর বাংলা নিউজ  ডেস্ক:   রাজশাহী -২ (সদর)  আসনের সাংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, ‘রাজশাহীর আইনশৃংঙ্খলার অবনতি হয়েছে। রাজশাহীতে একের পর এক হত্যা ছাড়াও বড় ধরণের ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। এতে বোঝা যায় রাজশাহীর আইনশৃংঙ্খলা আগের আবস্থানে নেই।

সোমবার দুপুরে নগরীর একটি হোটেলে রাজশাহীর আইনশৃংঙ্খলা বিষায়ক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, রাজশাহী এ ঘটনা নিয়ে আমি (বাদশা) স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবো। আর দুই একদিনের ব্যবধানে কয়েকটি বড় ধরণের ঘটনা ঘটলো। এসব ঘটনায় পুলিশ আসামিদের আটক করতে পারেনি।

এসময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, ওয়ার্কার্স পার্টির রাজশাহী মহানগর সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ প্রামাণিক দেবু, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জহা প্রমুখ।

উল্ল্যেখ, গত শনিবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে নগরীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাসার সামনে থেকে মাত্র ১০০ গজ দূরে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে হত্যা করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এফ এম রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে। তার গ্রামের বাড়ি রাজশাহীর বাগামারার দরগামারিড়ায়।

সেখানে তার একটি গানের স্কুল আছে। তিনি কোনো রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন না। সংস্কৃতিমনা ব্যক্তিত্ব ছিলেন। হত্যার ধরণ দেখে পুলিশ ধারণা করছে, জঙ্গি সংগঠন এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত থাকতে পারে। মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস এ হত্যার দায় স্বীকার করেছে বলে শনিবারই খবর দেয় জঙ্গি হুমকি পর্যবেক্ষণকারী এক ওয়েবসাইট।

এ ঘটনায় শনিবার বিকেলে নিহত শিক্ষকের ছেলে রিয়াসাত ইমতিয়াজ সৌরভ বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত এক শিবির নেতাকে আটক করেছে পুলিশ।

গতকাল রোববার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে নগর ভবনের সামনের ব্যবসায়ীক চেম্বারে নয়নের হাতে  পিস্তুলের গুলি অসাবধানতাবশত বের হয়ে গিয়ে টুকু নিহত হন – এমনটিই দাবি করেছে পুলিশ ও টুকুর ঘনিষ্টজনেরা।

এর আগে রাজশাহী মহানগরীর সাহেব বাজার এলাকায় অবস্থিত নাইস ইন্টারন্যাশনাল আবাসিক হোটেলের কক্ষে দুই শিক্ষার্থীর রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহততরা হলেন,  বগুড়া শহরের উপশহর এলাকার বাসিন্দা আবlদুল করিমের মেয়ে সুমাইয়া নাসরিন (২১)। তিনি পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থ বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন এবং সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার পাঠানপাড়া গ্রামের উমেদ আলীর ছেলে মিজানুর রহমান (২৩)। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY